লেখা আহ্বান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদ এর চলচ্চিত্র বিষয়ক পত্রিকা ‘আগন্তুক’ এর পরবর্তী সংখ্যার জন্য লেখা আহ্বান করা হচ্ছে। চলচ্চিত্র পর্যালোচনা, চলচ্চিত্রবিষয়ক প্রবন্ধ-নিবন্ধ, মৌলিক লেখা নিম্নোক্ত ঠিকানায় পাঠানোর আহ্বান করা হচ্ছে।

লেখা পাঠানোর ঠিকানা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদ (২য় তলা, টিএসসি)

ই-মেইল: agantuk.dufs@gmail.com
ইমেইল এর সাবজেক্ট হিসেবে অবশ্যই ‘DUFS Agantuk December’ ব্যবহার করতে হবে।

যোগাযোগ: +8801825998050

লেখা পাঠানোর শেষ তারিখ: ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

পূর্বে কোন মাধ্যমে প্রকাশিত লেখা গ্রহণযোগ্য। লেখা নির্বাচনের ক্ষেত্রে সম্পাদকের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

Call for write-ups!

Dhaka University Film Society is expecting write-ups for its cine-publication ‘Agantuk’. Submit your discussions, articles on cinema, unique writings to the address below.

E-mail: agantuk.dufs@gmail.com
Must use ‘DUFS Agantuk December’ as the subject of the mail.

Deadline: 12 December 2019

Contact: +8801825998050

Articles that have been published elsewhere before will not qualify.
The editor reserves the right to determine whether material submitted for publication shall be printed.

প্রকাশিত হল চলচ্চিত্র বিষয়ক নিয়মিত পত্রিকা ‘আগন্তুক’

সত্যজিৎ রায় জীবন সায়াহ্নে এসে নির্মাণ করেন তাঁর শেষ চলচ্চিত্র ‘আগন্তুক’।তাঁরই ছোটগল্প অতিথি থেকে এর জন্ম। মূলত আগন্তুক হলেন একজন অগ্নিপরীক্ষার প্রতীক, ভ্রম আর সত্যের বিভেদকারী একজন মূর্তিমান প্রশ্নবোধক চিহ্ন! সব ধর্ম সব সংস্কৃতি সব সভ্যতাকে ভালোবেসে একজন বিশ্বমানব হয়েছেন।মনমোহন মিত্র যেমন আগন্তুক পরিচয়ে একজন প্রশ্নবোধক এর ভুমিকা পালন করেন, তিনি যেমন ভ্রম আর সত্যকে পৃথক করেন একইরকম বোধ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদ থেকে প্রকাশিত হলো চলচ্চিত্র পত্রিকা ‘আগন্তুক’ এর প্রথম সংখ্যা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চলচ্চিত্র ভাবনাই আগন্তুকের মূল উপজীব্য।

প্রাপ্তিস্থান: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদ কক্ষ (২য় তলা, টিএসসি) ,আজিজ সুপার মার্কেট।

বর্ষ ০১, সংখ্যা ০১, অক্টোবর ২০১৯

সৌজন্য মূল্য: ৳১০ টাকা মাত্র।

সংগ্রহ করুন আজই!

Closing and Award Giving Ceremony: Short Film Festival on Cultural Diversity and Peace

Dhaka University Film Society, in association with ActionAid Bangladesh, is arranging Short Film Festival on Cultural Diversity and Peace. The festival purposes to provide an ideal platform for the talented filmmakers of Bangladesh where they can demonstrate their latent talent and improve themselves as filmmakers.

Through this festival, our goal is to promote cultural diversity, facilitate social cohesion and spark meaningful conversations about how to create a more peaceful world through the film as a medium. Short Film Festival on Cultural Diversity and Peace is an endeavor to acknowledge the transformative power of visual storytelling and celebrate the talent of the filmmakers of our country.

Teaser : Short Film Festival On Cultural Diversity and Peace.

The schedule for the event is as follows

September 8, 2019 (Sunday)

• 10.00 AM – 1.00 PM: Short Film Screening

• 2.00 PM – 4.00 PM: Short Film Screening

• 5.00 PM – 6.00 PM: Panel Discussion on ‘Film as a Medium of Spreading Cultural Diversity and Peace’

The discussants for the panel discussion are

  • Mostofa Sarwar Farooki, Filmmaker
  • Humayera Bilkis, Filmmaker
  • Zahirul Hasan, Filmmaker
  • Mejba Kamal, Faculty, Department of History, University of Dhaka

• 6.30 PM – 8.00 PM: Short Film Screening

September 9, 2019 (Monday)

• 10.00 AM – 1.00 PM: Short Film Screening

• 2.00 PM – 4.00 PM: Short Film Screening

• 5.00 PM – 6.30 PM: Closing Ceremony

The honorable guests to be present at the ceremony are

  • Asaduzzaman Noor, Member of Parliament (Bangladesh Jatiya Sangsad)
  • Dr. AAMS Arefin Siddique, Moderator, Dhaka University Film Society
  • Farah Kabir, Country Director, ActionAid Bangladesh
  • Mamunur Rashid, Prominent Showbiz Personality
  • Aman Ashraf Faiz, Managing Director, GTV

• 7.00 PM – 8.00 PM: Screening of Short Films from the 7th Film Workshop

*Please follow the Facebook event for the complete schedule and the details of the selected short films to be screened on these dates.

*The screenings are free of cost and open for all.

শুভ জন্মদিন জহির রায়হান

তিনি সম্ভবত বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ পরিচালক। না ফেরার জগতে পাড়ি জমানোর ৪৪ বছর পরেও বাংলা সিনেমায় তাঁর রেখে যাওয়া পদচিহ্ন এখনো অমলিন। বাংলাদেশিদের হৃদয়ে যতদিন জাতীয়তাবাদ এবং দেশপ্রেম বেঁচে থাকবে ততদিন বেঁচে থাকবেন তিনিও । অভিনব এক্ পন্থায়ও যে একটা জাতির স্রোতের অনুকূলে লড়াই , বাঙ্গালি মধ্যবিত্ত শ্রেণির শ্রম রূপালী পর্দায় তুলে আনা যায় , তাঁর আগে সেটা করে দেখাতে পারেন নি কেউ । হ্যাঁ , তিনি জহির রায়হান । মহান চলচ্চিত্রকার জহির রায়হান। ৪৭’ এ দেশবিভাগের পর কলকাতা থেকে জহির রায়হান তাঁর পরিবারের সাথে পৈতৃক ভিটায় চলে আসেন। ফটোগ্রাফির প্রতি প্রবল আগ্রহ থেকে এই বিদ্যা রপ্ত করার উদ্দেশ্যে ১৯৫২ সালে জহির রায়হান কলকাতায় পাড়ি জমান । সেখানে তিনি ভর্তি হয়ে যান ‘ প্রমথেশ বড়ুয়া মেমোরিয়াল ফটোগ্রাফি স্কুল ‘ এ ভর্তি হয়ে যান । জহির রায়হান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যাচেলর অফ আর্টস ডিগ্রী লাভ করেন। ‘ জাগো হুয়া সাভেরা ‘ সিনেমায় এ জে কারদারের সহকারি পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করার মাধ্যমে রূপালী পর্দার দুনিয়ায় পদযাত্রার শুরু। পরিচালক হিসেবে তাঁর প্রথম সিনেমা ‘ কখনো আসেনি ‘ মুক্তি পায় ১৯৬১ সালে। তাঁর পরিচালিত ‘ জীবন থেকে নেয়া ‘ তো বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসেরই অন্যতম শ্রেষ্ঠ সিনেমা হিসেবে জ্বলজ্বল করছে এখনো। ‘ লেট দেয়ার বি লাইট ‘ দিয়ে জহির রায়হান বিশ্বকে জানিয়ে দিয়েছিলেন নিরীহ বাঙ্গালীদের উপর পাকিস্তানী হানাদারদের নৃশংসতা। এছাড়াও তাঁর পরিচালিত অন্যান্য চলচ্চিত্রগুলি হচ্ছে ; ‘ কাঁচের দেয়াল ‘ , ‘ সঙ্গম ‘ , ‘ বাহানা ‘ , ‘ বেহুলা ‘ , ‘ আনোয়ারা ‘ ইত্যাদি । চলচ্চিত্রটাকে ভালোবাসতেন মন থেকে । ভালোবাসতেন প্রিয় মাতৃভূমিকে। ১৯৩৫ সালের আজকের এই দিনেই ফেনী জেলার নিভৃতে মাজুপুর গ্রামে পৃথিবীর আলো দেখেন জহির রায়হান। শুভ জন্মদিন জহির রায়হান। বেঁচে থাকুন বাঙ্গালীর হৃদয়ে আমৃত্যু ।

Award Giving Ceremony : 11th IIUSFF 2019

Dhaka University Film Society (DUFS), in collaboration with the United Nations High Commissioner for Refugees (UNHCR), is proud to present you the 11th edition of International Inter University Short Film Festival (IIUSFF). DUFS, with the motto “Take Your Camera, Frame Your Dream”, has been trying for decades to point the future of our films in a better direction. This festival serves as one of the prime examples of such endeavors. We have aspired to provide an ideal platform designed for the upcoming filmmakers of Bangladesh and overseas to showcase their talent and skills. This year alone, we have had participants from more than 100 countries, which speaks to the tremendous success of IIUSFF. The closing and award-giving ceremony of the 11th edition of IIUSFF is going to be held at TSC Auditorium tomorrow 31 July at 5 pm. You are cordially invited with your friends and family.